দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
বিএমএ’র কেন্দ্রীয় নির্বাচন
যশোরে স্বাচিপ প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয়
কাগজ সংবাদ :
Published : Friday, 23 December, 2016 at 12:40 AM
যশোরে স্বাচিপ প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয়বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত চিকিৎসকদের নির্বাচন বর্জনের ডাক দিলেও  উৎসব আয়োজনে সারা দেশের ন্যায় গতকাল যশোরে বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) কেন্দ্রীয় নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) ও বামপন্থী প্রগতিশীল চিকিৎসকদের জোট ডক্টরস ফর হেলথ এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট প্যানেলের প্রার্থীদের পক্ষে ভোট দিয়েছেন ভোটাররা। ভোটারদের রায়ে স্বাচিপ সমর্থিত ডাক্তার মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন-ডাক্তার ইহতেশামুল হক চৌধুরী প্যানেল নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়েছে।
পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টা থেকে যশোর সিসিটিএস মিলনায়তনে ভোট গ্রহণ কার্যক্রম শুরু হয়। সংগঠনের ৪২ টি পদের মধ্যে ৫টি বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও ৩টি সম্পাদকীয় পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হওয়ায় ৩৪ টি পদের বিপরীতে ভোট গ্রহণ হয়। ভোট কেন্দ্রে ভিতর ও বাইরে স্বাচিপ প্যানেলের প্রার্থী ও সমর্থকদের পদচারনায় ভোট উৎসব শুরু হয়। কিন্তু ডক্টরস ফর হেলথ এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট প্যানেলের কর্মী সমর্থকরা অনুপস্থিত ছিলো। বেলা ১১ পর্যন্ত ভোটার উপস্থিতি কম ছিল। কিন্তু বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটাররা দল বেধে আসতে থাকেন। বিরতিহীন ভাবে চলা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠানে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ৪৩৬ ভোটারের মধ্যে ৩৫২ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা করলেও যশোর ড্যাবের কার্যকরি পরিষদের সদস্য এবং প্রকাশ্যে সমর্থনকারীরাও ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন।   
ভোট গ্রহণ চলাকালীন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন চাকলাদার, খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাক্তার রওশন আনোয়ার প্রমূখ। নির্বাচন কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হওয়ায় তারা সন্তোষ প্রকাশ করেন।
ভোট গ্রহণ শেষে গণনা শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৫ টা থেকে। নির্বাচন কমিশনের ফলাফলে স্বাচিপের পূর্ণ প্যানেল বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। সভাপতি পদে স্বাচিপ প্যানেলের ডাক্তার মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন পেয়েছেন ৩৪২ ভোট। ডক্টরস ফর হেলথ এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ডাক্তার এস এম ফজলুর রহমান পেয়েছেন মাত্র ৫ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে ৩৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন স্বাচিপ প্যানেলের ডাক্তার ইহতেশামুল হক চৌধুরী। অপর দিকে ডক্টরস ফর হেলথ এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট প্যানেলের ডাক্তার শাকিল আখতার ভোট পেয়েছেন মাত্র ৬ টি। খুলনা বিভাগীয় সহ-সভাপতি পদে স্বাচিপ প্যানেলের ডাক্তার শেখ বাহারুল আলম ৩৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ডাক্তার এস এম ফরিদুজ্জামান পেয়েছেন মাত্র ৫ ভোট।
অন্যান্য পদে যারা স্বাচিপ প্যানেল থেকে জয়ী হয়েছে তারা হলেন, সহ-সভাপতি (ঢাকা মহানগর) ডাক্তার কনক কান্তি বড়ুয়া, সহ-সভাপতি (বরিশাল বিভাগ) ডাক্তার কামরুল হাসান সেলিম ও সহ-সভাপতি (চট্টগ্রাম বিভাগ) ডাক্তার শফিউল আজম। এছাড়াও  কোষাধ্যক্ষ পদে ডাক্তার জাহিদ হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব ডাক্তার কামরুল হাসান মিলন, সাংগঠনিক সম্পাদক ডাক্তার তারিক মেহেদি পারভেজ, দপ্তর সম্পাদক ডাক্তার শেখ শহিদুল্লাহ, প্রচার ও জনসংযোগ সম্পাদক ডাক্তার মাহবুবুর রহমান বাবু, সাংস্কৃতি ও আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার পূরবী রাণী দেবনাথ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ডাক্তার  সোহেল মাহমুদ।
কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য পদে যারা জয়ী হয়েছেন তারা হলেন, ডাক্তার সেলিম, ডাক্তার মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া, ডাক্তার শফিকুর রহমান, ডাক্তার মুশতাক হোসেন, ডাক্তার শারফুদ্দিন আহমেদ, ডাক্তার মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন চৌধুরী, ডাক্তার এ এস এম জাকারিয়া স্বপন, ডাক্তার এম নজরুল ইসলাম, ডাক্তার এহসানুল কবির জগলুল, ডাক্তার আব্দুল আজিজ, ডাক্তার আবু রায়হান, ডাক্তার জুলফিকার আলী লেনিন, ডাক্তার আবু ইউসুফ ফকির, ডাক্তার জহুরুল হক সাচ্চু, ডাক্তার চিত্তরঞ্জন দাস, ডাক্তার উত্তম কুমার বড়ুয়া, ডাক্তার বাবরুল আলম, ডাক্তার জাবেদ, ডাক্তার হোসেন মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান, ডাক্তার হাসানুর রহমান ও ডাক্তার মুহাম্মদ হারুন-অর-রশীদ।
বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতরা হলেন, সহ-সভাপতি (ঢাকা বিভাগ) ডাক্তার জামাল উদ্দিন খলিফা (ময়মনসিংহ বিভাগ) ডাক্তার আ ন ম ফজলুল হক পাঠান, সহ-সভাপতি (রাজশাহী বিভাগ) ডাক্তার মোস্তফা আলম নান্নু, সহ-সভাপতি (রংপুর বিভাগ) ডাক্তার দেলোয়ার হোসেন, সহ-সভাপতি (সিলেট বিভাগ) ডাক্তার মুরশেদ আহমেদ চৌধুরী, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার শাহরিয়ার নবী শাকিল, গ্রন্থাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক ডাক্তার কাজী শফিকুল হালিম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার আবুল হাশেম খান। যশোর থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কাউন্সিলর পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন ডাক্তার মাহমুদুল হাসান পান্নু, ডাক্তার গোলাম মোর্তুজা, ডাক্তার পার্থ প্রতীম চক্রবর্তী, ডাক্তার মোস্তফা কামাল সৈকত ও ডাক্তার রিয়াদ বিন আলী।
যশোরের নির্বাচন কমিশনের আহবায়ক ডাক্তার জিকেএম কামরুজ্জামান জানান, সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ একটি নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা গেছে। গৃহিত ৪৩৬ ভোটের মধ্যে ৩৫২জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। তার মধ্যে ২টি ব্যালট বাতিল হয়েছে। স্বচ্ছতার সাথে ভোট গ্রহণ ও গণনা সম্পন্ন করে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। কোন প্রকার অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়নি। উৎসব আনন্দে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। কোন প্রকার রাজনৈতিক বা ক্ষমতার প্রভাব খাটায়নি কেউ। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন অনুষ্ঠান পরিচালনার জন্যে কমিশনের সদস্য হিসেবে ডাক্তার সন্তোষ বাঁগচী  ও ডাক্তার এনকে আলম সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্পন্নে জন্যে সহযোগিতাকারী সকলের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।
যশোর বিএমএ সভাপতি ডাক্তার একেএম কামরুল ইসলাম বেনু জানিয়েছেন, বিপুল সংখ্যক ভোটারের উপস্থিতি নির্বাচন উৎসবে পরিণত হয়েছিলো। ড্যাবের নির্বাচন বয়কটে ভোটাররা সাড়া দেয়নি। কেউ নেতিবাচক প্রভাব ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গণতান্ত্রিকভাবে ভোটাররা তাদের রায়ে স্বাচিপ প্যানেলকে জয়ী করেছেন। সকল ভোটারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি।




আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft